গর্ভকালীন ফাটা দাগ দূর করার ঘরোয়া উপায়

গর্ভকালীন ফাটা দাগ দূর করার ঘরোয়া উপায় 

ওয়েলকাম আজ আমি তোমাদের সঙ্গে শেয়ার করব স্ট্রেচ মার্ক[ Stretch marks]অর্থাৎ ফাটা দাগ কিভাবে দূর করতে পারবেন সম্পূর্ণ ঘরোয়া এই ২ টি রেমিডি ব্যবহার করে স্ট্রেচ মার্ক দূর করা সম্ভব। 

পেটের  ফাটা দাগ বিভিন্ন কারণে হতে পারে। শুধু যে পেটে হয় তা নয় আমাদের থাইয়ে হাতে পিঠে বিভিন্ন জায়গায় কিন্তু এই ফাটা দাগ চলে আসতে পারে। 

গর্ভকালীন ফাটা দাগ একটা হয় আরেকটা কিন্তু ওভারওয়েট যাদের হয় খুব মেদ থাকে শরীরে সেই মেদের ক্ষেত্রেও হয়। অতিরিক্ত মেদ ঝরানোর ক্ষেত্র হতে পারে ।

 যে হঠাৎ করে মোটা থেকে রোগা হওয়ার ক্ষেত্রে কিন্তু এই স্ট্রেচ মার্ক[Stretch marks] কিন্তু চলে আসতে পারে। তো বন্ধুরা এই ফাটা দাগ তোমরা ঘরোয়া উপায় সম্পূর্ণরূপে নির্মূল করবেন। 

তাহলে চলো জেনে নেওয়া যাক। সবার প্রথমে আমি একটা স্ক্রাব বলবো। এই স্ক্রাবটি কিন্তু ভীষণ কার্যকর ফাটা দাগের জন্য। প্রথমে নিয়ে নিতে হবে আমাদের সুগার মানে চিনি। তোমরা চিনি ছোট করে গুর করে নিতে পারো অথবা ছোট দানা চিনি নিতে পারে সুগার কিন্তু খুব ভালো কাজ করে। পেটের যে নোংরা গুলো সেগুলো বের করে দেবে। এবং স্টেস মার্ক [Stretch marks] এর ক্ষেত্রে অনেকটাই কার্যকারী এর মধ্যে নিয়ে নব কোকোনাট অয়েল  ২ চামচ কোকোনাট অয়েল ।

কোকোনাড অয়েল না থাকলে। তোমরা অলিভ অয়েল ব্যবহার করতে পারো। এখানে ১চামচ মত কোকোনাট অয়েল নিয়ে নিয়েছে। কোকোনাট অয়েল ওই ফাটা জায়গাটা অনেকটা মসারাইজ রাখবে ক্লীন রাখবে এবং অনেকটা নরম করে দেবে। 

আরো পড়ুন: Hair Transplants করা কী নিরাপদ

তার ফলে কিন্তু স্ট্রেচ মার্ক টা অনেকটাই দূরে সরবে এর মধ্যে দিয়ে দেব অল্প একটু হলুদ গুঁড়ো। হলুদ গুঁড়ো মধ্যে অ্যান্টিবায়োটিক থাকার কারণে ট্রেডমার্কের [Stretch marks] দাগগুলো হালকা করতে সাহায্য করবে এবং যে কালো কালো ভাব চলে আসে সেটা কেউ কিন্তু পরিষ্কার করবে।

এবার এর মধ্যে দেবো পাতিলেবুর রস পাতি লেবুরস আর চিনি ভীষণ ভালো কাজ করে এই স্ক্রাবটি তাই এর মাধ্যমে পাতি লেবুর রস দিয়ে দেবো ২ থেকে ৩ ফোঁটা এবার সব একসঙ্গে মিশিয়ে নেব। স্ক্রাব টা একদম রেডি আমাদের ফাটা দাগের জন্য  স্ক্রাব টা তোমরা পেটে ২ থেকে ৩ মিনিট  স্ক্রাব করার পর নর্মাল জল দিয়ে ওয়াশ করবে।

 তারপরে আমি তোমাদের সঙ্গে শেয়ার করব একটা   মাস্ক বলতে পারো ফাটা দাগের জন্য একটা ডেলি মাস্ক। প্রথমেই একটা ছোট পাত্রে নিয়ে নিব হলুদ গুঁড়ো অনেকটাই হলুদ গুঁড়ো নিতে হবে।

তোমাদের যেখানে যেখানে ফাটা দাগ আছে সেখানে কিন্তু লাগাতে হবে সেই বুঝে হলুদ গুলো নিতে হবে। আমি এখানে ৩ থেকে ৪ চামচ মতো নিয়েছি হলুদ গুঁড়ো আমাদের ফাটা দাগ গুলো নিরাময় করে অনেকটা এবং ঢেকে দেওয়ার চেষ্টা করে। এবং ধীরে ধীরে এই রিমেডি ব্যবহার করলে তোমাদের ফাটা দাগ কিন্তু সম্পূর্ণ চলে যাবে। 

এবার এরমধ্যে দেবো সরসের তেল ২ থেকে ৩ চামচ মত। বন্ধুরা সরষের তেল  স্ট্রেচ মার্কের জন্য ভীষণ কার্যকরী তোমরা নিয়মিত যদি শুধু এটা দিয়ে মালিশ করো। দেখবে তোমাদের ফাটা দাগ ধীরে ধীরে কিন্তু অনেকটা লাইট হবে এবং ফাটা দাগ চলে যাবে। 

আরো পড়ুন :  হেয়ার ট্রান্সপ্লান্ট এবং চুল পড়ার চিকিৎসার মধ্যে কী বেছে নেবেন

এবার এই দুটো উপাদান একসঙ্গে ভালোভাবে  মিক্স করে নিতে হবে। যেখানে আমরা স্ক্রাব করেছিলাম সেই জায়গাটিকে ভালো করে ঠান্ডা জল দিয়ে ধুয়ে নিতে হবে। তারপর এটা মিশ্রণটি লাগিয়ে নিয়ে ২থেকে ৩ মিনিট ম্যাসাজ করে ওভাবেই ছেড়ে দেবেন অন্তত ১৫ থেকে ২০ মিনিট পর ঠান্ডা জল দিয়ে ধুয়ে নিন। 

 বন্ধুরা এই দুটো রেমেডি তোমরা অবশ্যই ফলো করো অন্তত সপ্তাহে তিন থেকে চারদিন দেখবে তোমাদের স্ট্রেচ মার্ক [Stretch marks]গর্ভকালীন ফাটা দাগ কিন্তু চলে যাবে বন্ধুরা এই প্রতিবেদনটি ভালো লাগলে বন্ধুদের সঙ্গে শেয়ার করতে ভুলবেন না ধন্যবাদ।