ছেলেদের চুল ভালো রাখার ৭ টি ঘরোয়া উপায়

ছেলেদের চুল ভালো রাখার ৭ টি ঘরোয়া উপায়

ছেলেদের চুল ভালো রাখার ৭ টি ঘরোয়া উপায়। আমরা সবাই চাই আমাদের চুল দেখতে ঝলমলে স্বাস্থ্যোজ্জ্বল হোক এটি আমাদের অনেকখানি কনফিডেন্স যোগায় এছাড়াও আমাদের চেহারার সৌন্দর্যের অনেকখানি নির্ভর করে এর ওপর চুল পড়ে যাওয়া চুলের আগা ফেটে যাওয়া চুল মলিন হয়ে যাওয়া আমাদের নিত্যদিনের সঙ্গী হয়ে দাঁড়িয়েছে।

আর এইগুলো ঠিক করার কোন শর্টকাট পদ্ধতি নেই। তবে এমন কিছু টিপস আছে যা মেনে চললে আমাদের চুল হয়ে উঠবে আকর্ষণীয় এবং স্বাস্থ্যোজ্জ্বল। আজকের এই প্রতিবেদনে আমরা এই টিপসগুলো জানতে চলেছে তো আর কথা না বাড়িয়ে চলুন জেনে নেয়া যাক।

১. সেলুনে ঘনঘন জান

ছেলেদের চুল ভালো রাখার উপায় সেলুনে ঘনঘন জান, শুনতে অদ্ভুত লাগলেও চুলকে স্বাস্থ্যোজ্জ্বল করার একটি গুরুত্বপূর্ণ উপায়। সেলুনে ঘনঘন যাওয়া মানে আপনার চুল কয়েকদিন পরপর কাটা চাইলে আপনি ঘরে বসে করতে পারেন খুব সামান্য পরিমাণে হলেও চুলের আগা কেটে দেওয়া এগুলো করা চুলের স্বাস্থ্যোজ্জ্বল হওয়ার জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে।

যারা অনেকদিন পর পর সেলুনে যায় বা অনেকদিন পর পর চুল ট্রিম করে তাদের চুলের স্বাস্থ্য অনেক মলিন হয়ে পড়ে। চুল কাটলে চুলের গ্রোথ বাড়ে এটি বৈজ্ঞানিকভাবে প্রমাণিত।

২. সিল্কের বালিশে ঘুমানো

সিল্কের বালিশে ঘুমানো এই টিপসটি সচরাচর কারো কাছ থেকে শোনা যায় না আপনার চুলের এবং ত্বকের স্বাস্থ্য ভালো রাখার জন্য সুতির বালিশের কভারের জায়গায় সিল্কের বালিশের কভার ব্যবহার করুন। এটি আপনার চুলের কিউটিকল কে প্রটেক্ট করতে সাহায্য করবে সুতির কাপড়ের সাথে চুলের ঘর্ষণ বেশি হয় ফলে চুলের বহিরাবরণ মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয় যা কিনা সিল্কের কাপড় এর ক্ষেত্রে হয়না। কারণ এটি তেলতেলে তাই আজই বালিশের কভার পরিবর্তন করুন।

৩. মাথার স্ক্যাল্পে যত্ন

মাথার চামড়া যে চুলের মুল সেটা আমরা সবাই জানি মাথার ত্বক যদি স্বাস্থবান না হয় তবে মাথার চুল ও স্বাস্থ্যবান হবেনা। মাথার স্ক্যাল্পে যদি ডেড সেলে পরিপূর্ণ থাকে তবে তা চুলের গোড়া কেউ ক্ষতিগ্রস্থ করে থাকে চুল গোড়া থেকে ভেঙ্গে যেতে পারে।

অনেকে মনে করেন খুশকি খুব সাধারন একটি সমস্যা কিন্তু না এটি আপনার চুল পড়ে যাওয়া এবং চুলের স্বাস্থ্য নষ্ট হয়ে যাওয়ার মূল কারণ হয়ে দাঁড়ায়। যদি আপনি লম্বা স্বাস্থ্যজ্জ্বল চুল চান তবে স্ক্যাল্প মাসাজ করা আপনার জন্য বেস্ট অপশন এটি আপনার মাথার রক্ত চলাচল বৃদ্ধি করবে যার ফলে আপনার মাথায় নতুন চুল গজাতে এবং চুল স্বাস্থ্যোজ্জ্বল হতে অনেক বেশী সাহায্য করবে মাসাজ সময় চুলে তেল ব্যবহার করতে পারেন এতে আপনার খুশকিও দূর হবে।

[আরো পড়ুন : ইউরিক অ্যাসিড হলে কী খাবেন কী খাবেন না ]

৪ . পুষ্টিকর খাবার গ্রহণ

পুষ্টিকর খাবার গ্রহণ শরীরের অন্যান্য অংশের মতো চুলের জন্য পুষ্টিকর খাবার অত্যান্ত জরুরী আর এর ভিতরে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ উপাদান হলো প্রোটিন। যদি আপনার অতিরিক্ত চুল পড়ে যাওয়ার সমস্যা থেকে থাকে তবে বুঝবেন যে আপনার শরীর আপনার চুলে পর্যাপ্ত প্রোটিন সাপ্লাই করছে না আপনি যদি পর্যাপ্ত প্রোটিন গ্রহণ করে থাকেন তবে শরীরের অন্যান্য অংশের মতো প্রোটিন সাপ্লাই করা শুরু করবে। এরপর আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান হচ্ছে আয়রন এটি চুলের জন্য এনার্জি ফোর্স হিসেবে গণ্য করা হয়।

৫. গোসলের আগে চুল আচঁড়ানো

গোসলের আগে চুল আচঁড়ানো আমাদের মাথার ত্বকে এক ধরনের ন্যাচারাল তেল আছে যা চুল আচঁড়ালে আমাদের পুর মাথায় ছড়িয়ে যায়। এটি চুলকে স্বাস্থ্যোজ্জ্বল করার জন্য Naturally কাজ করে এছাড়াও চুল আঁচড়ালে চুলের গোড়া শক্ত হয় ফলে গোসলের সময় চুল কম পড়ে গোসলের পর ভেজা চুল আঁচড়াবেন না।

৬. চুলে গরম হিট

শীতের সময় অনেকেই গরম পানি দিয়ে গোসল করে থাকে এটি চুল এবং চুলের জন্য অনেক ক্ষতিকর। গোসলের সময় চেষ্টা করবেন পানির তাপমাত্রা যতটা সম্ভব উষ্ণ রাখবেন এছাড়াও যদি আপনার প্রতিদিনের Hair dryer ব্যবহারের অভ্যাস থেকে থাকে তবে এটি পরিহার করুন কেননা এটি আপনার চুলকে ধীরে ধীরে পুষ্টিহীন করে তুলবে এছাড়াও চুলের গোড়া কে করবে রুক্ষ। এছাড়াও যারা চুলে Hair stener ব্যবহার করেন তারাও সাবধানতা অবলম্বন করবেন কেননা এই সবগুলো অভ্যাসে চুলের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর।

৭. শ্যাম্পু ব্যবহার

ছেলেদের চুল ভালো রাখার ঘরোয়া উপায় শ্যাম্পু ব্যবহার করুন চুলের স্বাস্থ্য ধরে রাখবে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে সালফেট ফ্রি মুক্ত শ্যাম্পু ব্যবহার করা। সালফেট এমনই একটি কেমিক্যাল যায় বাজারের বিক্রি হওয়া বেশিরভাগ শ্যাম্পুতে পাওয়া যায়। এটি চুলের ফলিকল ক্ষতিগ্রস্ত করে চুলের গোড়া দুর্বল করে দেয়। সালফেট ফ্রি শ্যাম্পু চুলের ক্ষতি না করে আপনার চুলকে পরিষ্কার করে।

যেকোনো শ্যাম্পু কেনার আগেই শ্যামপুর পেছনে ইনগ্রিডিয়েন্ট লিস্ট থেকে সালফেট আছে কিনা চেক করে দেখবেন বর্তমানে আপনি কোন শ্যাম্পু ব্যবহার করেন কমেন্টে জানাতে ভুলবেন না। উপরের এই বিষয়গুলো ছাড়াও অতিরিক্ত ধূমপানের অভ্যাস থাকলে সেটি পরিহার করুন এছাড়াও সূর্যের ইউভি রাদিয়েশন আমাদের চুলের ক্ষতি করে প্রায়ই বাইরে যাওয়ার সময় মাথায় প্রটেকশন ব্যবহার করতে পারেন।

এমনই কিছু ছোট ছোট সহজ পদ্ধতি অবলম্বন করে আপনার চুল ভালো শক্তিশালী ও স্বাস্থ্যজ্জ্বোল
করে তুলতে পার বেন বন্ধুরা এই প্রতিবেদনটি আপনাদের ভালো লেগে থাকলে অবশ্যই বন্ধুদের সঙ্গে Facebook শেয়ার করতে ভুলবেন না ধন্যবাদ।