গরমকালে ড্রাই স্কিনে মেকআপ করার টিপস-Makeup tips for dry skin

গরমকালে ড্রাই স্কিনে মেকআপ করার টিপস

ত্বক যদি তৈলাক্ত বা স্বাভাবিক হয় তবে মেকআপ প্রয়োগে কোনও সমস্যা নেই।  তবে ত্বক যদি ড্রাই স্কিন(dry skin) হয় তবে মেকআপ প্রয়োগ করলে ত্বক আরো শুষ্ক হয়ে যায়।  মুখটি আরও শুষ্ক এবং প্রাণহীন দেখায়  অনেক সময় মেকআপ ফেটে যায়। কিন্তু তাইবলে কি মেকআপ করবো না। সে আবার হয় নাকি মেকআপ তো করতেই হবে কিন্তু কীভাবে?

যাদের ড্রাই স্কিনে কএই সমস্যার সমাধান করতেই আজ এমনই কিছু টিপস শেয়ার করবো ড্রাই স্কিনের (dry skin) মেকআপ প্রধতি । কীভাবে মেকআপ করলে মুখ শুকনোও লাগবে না, মেকআপ ফেটেও যাবে না আবার সুন্দর লাগবে। কীভাবে করবেন স্টেপ বাই স্টেপ ড্রাই স্কিনের(dry skin)মেকআপ জেনে নিন এক নজরে।  

স্টেপ ১ মুখ পরিষ্কার করুন।

নিখুঁত মেকআপ করার প্রথম পরামর্শটি হল মুখটি ভালভাবে পরিষ্কার করা।  নোংরা মুখে মেকআপটি যতই ভাল হোক না কেন দেখতে ভালো লাগে না বা ত্বকের ক্ষতি হয়।  তাই মেকআপ প্রয়োগের আগে সর্বদা আপনার মুখ পরিষ্কার করুন।  প্রতিদিন ব্যবহার করা ফেসওয়াশ দিয়ে মুখ ভালো করে ধুয়ে ফেলুন।  আপনার মুখে যদি বেশি ঘামে তবে আপনি কিছুটা বরফ মুখে ঘষতে পারেন। এটি দীর্ঘ সময় ধরে মুখে মেকআপ বজায় রাখতে সহায়তা করে।

পদক্ষেপ ২ ত্বককে ময়শ্চারাইজ করুন:

মুখ পরিষ্কার করার পরবর্তী পদক্ষেপটি হল ময়শ্চারাইজ করা।  ত্বক ড্রাই (dry skin) হওয়ার কারণে  মুখ পরিষ্কার করার পরে ত্বক আরও শুষ্ক হয়ে যায়।  আপনি যদি এটিতে মেকআপ প্রয়োগ করেন তবে ত্বক আরও শুষ্ক হয়ে উঠবে, মেকআপটি ঠিক মতো বসবে না এবং ফেটে যাবে।  তাই ত্বককে ময়েশ্চারাইজ করে রাখা খুব জরুরি।  গ্রীষ্মেকালে মেকআপ করার সময় আপনার ভারী শীতের ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করা উচিত নয়।  গরমকালে জন্য একটি হালকা ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করুন।

পদক্ষেপ ৩ মেকআপটি ধরে রাখা প্রাইমার

অনেকে বলেন মেকআপ করলে প্রথম টা খুব সুন্দর লাগে।  কিন্তু কয়েক ঘন্টা পরে আর সেই লুকটা থেকে না মেকআপ উঠে যায়। ঠিক এখানে প্রাইমার প্রয়োজন । বাড়িতে রং করার আগে প্রাইমার লাগানো হয় রং ধরে রাখার জন্য।
ঠিক তেমনি মেকআপের আগে প্রাইমার প্রয়োগ করা হলেও মেকআপটি দীর্ঘ সময়ের জন্য সুন্দর থাকে এবং  প্রাইমার মেকআপ ত্বককে ক্ষতিকারক রাসায়নিক থেকেও রক্ষা করে।

তাই মেকআপ শুরু করার আগে ভালো প্রাইমার লাগিয়ে নিন।  আপনার যদি প্রাইমার না থাকে তবে আপনি অ্যালোভেরা জেলও প্রয়োগ করতে পারেন।  এটি প্রাইমারের কাজও করবে।  ত্বককে সুরক্ষা দেবে এবং মেকআপ ধরে রাখতে সহায়তা করবে।  ত্বককে হাইড্রেটেড রাখুন এতে মুখ শুকবে না।

  পদক্ষেপ ৪ তারপরে ফাউন্ডেশন

প্রাইমার প্রয়োগের পরে ত্বক মেকআপের জন্য প্রস্তুত।  এখন আপনি ফাউন্ডেশন লাগাতে পারেন।  ফাউন্ডেশন ভাল মানের ব্যবহার করুন।  যাতে ত্বক শুষ্ক না হয়।  এবং যারা হালকা মেকআপের জন্য ফাউন্ডেশন ব্যবহার করতে চান  না তারা বিবি বা সিসি ক্রিম প্রয়োগ করতে পারেন।  এটি মেকআপ কজ করে।

  যাদের ডড্রই স্কিন(dry skin) তারা স্টিক ফাউন্ডেশন ব্যবহার করবেন না।  এটি ত্বককে আরও শুষ্ক করবে এবং মেকআপ বসবে না।  তারা লিকুইট ফাউন্ডেশন ব্যবহার করুন।  হাতে সামান্য ফাউন্ডেশন নিন এবং এটি পুরো মুখে হালকাভাবে লাগান এবং পুরো মুখে ভাল করে ব্লেন্ড করুন।

পদক্ষেপ ৫ কনসিলার মুখের দাগগুলি কভার করবে

এমনকি ফাউন্ডেশন প্রয়োগের পরেও যদি চোখের নীচে কালি দেখা যায় বা মুখের উপর কালো ছোপ দাগ দেখা দেয়, তবে কনসিলার লাগান।  মুখের যেখানে দাগ আছে সেই অংশে একটু কনসিলার লাগিয়ে হালকা করে ব্লেণ্ড করে দিন।  ফাউন্ডেশন প্রয়োগের আগে আপনি এটি প্রয়োগ করতে পারেন।  আপনি মুখের সমস্ত দাগ ছোপ ঢেকে তারপরে ফাউন্ডেশন প্রয়োগ করতে পারেন। তবে ভালোভাবে মেকআপ করার পরও যদি মুখের কালো ছোপ বা চোখের নিচে কালি বোঝা যায় তাহলে পারফেক্ট লুক একদমই আসে না।

 
গরমকালে ড্রাই স্কিনে মেকআপ করার টিপস

পদক্ষেপ ৬ ঠোঁট মেকআপ:

মুখ হয়ে গেল এবার ঠোঁট ।  ঠোঁটে লিপস্টিক লাগানোর আগে ঠোঁটৈ লিপবাম লাগান। যাদের  ঠোঁট তারাতারি শুকনো হয়ে যায় তাদের লিপস্টিক লাগানোর আগে অবশ্যই ঠোঁট লিপবাম লাগাতে হবে এতে ঠোঁট শুকবে না।  তারপরে আপনার পছন্দের লিপস্টিক লাগান।  ম্যাট লিপস্টিক লাগালে লিপস্টিক লাগানোর এক ঘন্টা আগে ঠোঁটে লিপবাম লাগান ঠোঁট নরম থাকলে লিপস্টিক ফাটবেনা।  সুন্দর মুখে ফেটে যাওয়া ঠোঁট খুবই খারাপ লাগে ।

আরো পড়ুন : উজ্জ্বল ত্বক পেতে হলুদ ফেস প্যাক

পদক্ষেপ ৭ চোখের সাজানো

এবার চোখ সাজানোর পালা।  অনেকে চোখের জন্য আলাদা আই প্রাইমার ব্যবহার করেন।  তবে এটাতে তেমন কোন লাভ নেই। প্রথমেই কাজল পেনসিল দিয়ে চোখ এঁকে নিন। তারপর অ্যাই লাইনার লাগান । তারপরে অ্যাই ভ্রু পেনসিল দিয়ে অ্যাই ভ্রু সাজিয়ে নিন। এরপর মাস্কারা, অ্যাইশাড লাগাতে চাইলে লাগিয়ে নিন।  

পদক্ষেপ ৮ফেজ ফিনিশিং টাচ

বেসিক মেকআপ শেষ।  এখন আপনি হাইলাইটার দিতে পারেন।  আপনি যদি কোনও পার্টিতে যান বা কোনও ভারী মেকআপ করতে চান তবে আপনি এটি দিতে পারেন। হালকা মেকআপের ক্ষেত্রে এটা দরকার নেই।  হাইলাইটার ব্রাশের সাহায্যে গালে এবং কপাল হালকা ভাবে ব্লেণ্ড করুন।  এটিকে পুরো মুখ দেবেন না। এটি মুখের কিছু অংশগুলি হাইলাইট করতে ব্যবহৃত হয়।

  মনে রাখবেন

অবশ্যই ঘরে ফিরে ক্লিনজার দিয়ে সমস্ত মেকআপটি ভাল করে তুলুন।  ভালো করে মুখ পরিষ্কার করুন।

রাতের বেলা ফিরে মেকআপ না তুলে কোখনই শুয়ে পরা উচিত নয় এর ফলে ত্বকের মারাত্মক ক্ষতি হতেপারে।

সমস্ত মেকআপ ভাল মানের ব্যবহার করার চেষ্টা করুন।  বিশেষত চোখের মেকআপ।  যাতে চোখের ক্ষতি না হয়।  চোখ আমাদের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অংশ।

কখনও বেশি হাইলাইটার প্রয়োগ করবেন না।  এটি মুখটিকে আরও চকচকে করে তুলবে।  গলা বা হাত কালো দেখাবে এবং মুখ চকচকে হলে খারাপ লাগবে। 

ত্বক যদি খুব শুষ্ক থাকে তবে মেকআপ শুরু করার আগে আপনি সিরামও লাগাতে পারেন।

মেকআপ প্রয়োগের পরে, আপনি মেকআপটি ধরে রাখতে মেকআপ স্প্রেও ব্যবহার করতে পারেন।

বন্ধুরা আশাকরি যাদের ড্রাই স্কিন (dry skin) তারা গরম কালে কিভাবে মেকআপ করবেন আপনাদের কাছে পরিষ্কার। বন্ধুরা এই প্রতিবেদনটি ভালো লাগলে অবশ্যই বন্ধুদের সঙ্গে ফেসবুকে শেয়ার করতে ভুলবেন না ধন্যবাদ!