মাত্র ৩ দিনে ত্বক ফর্সা করুন ম্যাজিকের মত

মাত্র ৩ দিনে ত্বক ফর্সা করুন ম্যাজিকের মত

হ্যালো বন্ধুরা আপনাদের সাথে আজকে যে বিষয়টা নিয়ে আমরা আলোচনা করব সেটি হল ত্বকের উজ্জলতা নিয়ে। আজ আমরা ত্বক ফর্সা করার কার্যকরী প্রাকৃতিক উপায় নিয়ে আপনাদের সামনে হাজির হয়েছি। আর এই পদ্ধতিগুলো আমি নিজে কিছুদিন ব্যবহার করার পরই যেগুলো আমার কাছে কার্যকরী মনে হয়েছে ।

সেগুলো আজ আমি আপনাদের সাথে শেয়ার করবো। তো সরাসরি চলে যাচ্ছি মূল বিষয়। উজ্জ্বল ত্বকের কদর সবসময়ই রয়েছে। আর গায়ের রং যেমনই হোক মুখের উজ্জ্বল লুক কিন্তু আত্মবিশ্বাস বাড়ায়।

 আজ আমি আপনাদের সাথে ত্বকের রঙ ফর্সা করে এমন ২টি কার্যকরী হোম রেমেডি সম্পর্কে বলব এবং ছেলেদের ত্বক ফর্সা করার খুব সহজ ৫টি গুরুত্বপূর্ণ উপায় বলবো। যদি প্রত্যেকটা নিয়ম ধাপে ধাপে মানতে পারেন। তাহলে অবশ্যই আপনার ত্বককে আরও ফর্সা করতে পারবেন।

 ১ :নাম্বার. 

 দুধ ও শুকনা কমলার খোসা ত্বক ফর্সা করতে কাঁচা দুধ খুবই কার্যকরী এবং শুকনা কমলার খোসা আপনার ত্বকের জন্য খুবই উপকারী বিশেষ করে কমলার খোসা ত্বকের কালচে ভাব দূর করে। এবং ত্বকের ময়লা পরিষ্কার করে।

 প্রথমে কড়া রোদে কমলার খোসা রেখে তা ভালোভাবে শুকিয়ে নিন। কমলার খোসা শুকিয়ে গেলে তা ভালোভাবে পাউডার করে একটি পাত্রে সংরক্ষণ করুন। এরপর ১ টেবিল চামচ শুকনা কমলার খোসার গুরা নিয়ে তার সাথে ৪ টেবিল চামচ কাঁচা দুধ মিশিয়ে খুব ভালোভাবে পেস্ট বানিয়ে নিন। 

এবার এই পেস্টটি আপনার মুখে ভালো করে লাগিয়ে নিন। এবং ২০ মিনিট পর জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। কাঁচা দুধে আছে ল্যাকটিক এসিড যা ত্বকের ভেতর থেকে ফর্সা করে। এবং কমলার খোসায় প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট রয়েছে এটি আপনার ত্বক উজ্জ্বল করার পাশাপাশি ত্বক টানটান করবে এবং নরম ও মসৃণ করবে এবং ব্রণ দূর করবে। সপ্তাহে অন্তত ২’দিন এই প্যাকটি ব্যবহার করলে ভাল ফল পাবেন।

 ২ :নাম্বার 

একটি ফেসপ্যাক বানানোর জন্য ১টি টমেটো ছোট ছোট টুকরো করে কেটে সেটাকে ব্লেন্ড করে নিন। এরপর তাতে ১ চামচ টক দই আধা চা চামচ মধু এবং ২ চা চামচ বেসন নিয়ে ভালোভাবে মিক্স করে নিন। হয়ে গেলো আপনার ফেয়ারেনস ফেসপ্যাক তৈরি। আর এখন এটা আপনার ত্বকে লাগিয়ে নিন। 

আরো পড়ুন : ৩ দিনে চোখের নিচের কালো দাগ দূর করার উপায়

এই প্যাকে এন্ডজেন প্রপার্টি রয়েছে। যা আপনার ত্বকের উজ্জলতা দ্বিগুণ হারে বৃদ্ধি করবে। এর পাশাপাশি ত্বকের তৈলাক্ত ভাব দূর করবে এবং ত্বক উজ্জ্বল করতে সাহায্য করবে। এটা ব্যবহারের ৩০ মিনিট পর  জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

জদি এই ফেস প্যাকটি একবার ব্যবহার করেন তাহলে আপনি আপনার ত্বকে অনেক পার্থক্য দেখতে পাবেন। প্রতি মাসে ২বার এটা আপনি আপনার স্ক্রিনে এপ্লাই করতে পারেন। এখন চলুন জেনে নেই ত্বক ফর্সা করার খুব সহজ ৫টি উপায় সম্পর্কে যদি প্রত্যেকটা নিয়মকে ধাপে ধাপে মানতে পারেন তাহলে অবশ্যই আপনার ত্বককে আরও স্থায়ীভাবে ফর্সা করতে পারবেন।

মাত্র ৩ দিনে ত্বক ফর্সা করুন ম্যাজিকের মত

 ১ :নাম্বার

 সকালে ঘুম থেকে উঠে এবং রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে ফেসওয়াশ দিয়ে ত্বক ভালোভাবে পরিষ্কার করতে হবে।  অবশ্যই ভালো ব্র্যান্ডের ফেসওয়াশ ব্যবহার করবেন। আর অবশ্যই খেয়াল রাখবেন যেন আপনার ত্বকের জন্য মানানসই হয়।

 ২ নাম্বার

প্রতিদিন সকালে খালি পেটে ১ চা চামচ অলিভ অয়েল এর সাথে ১ চা চামচ পাতিলেবুর রস মিশিয়ে খেয়ে দেখুন। এটা করলে আপনার ত্বকের উজ্জ্বলতা ফুটে উঠবে । সেই সাথে আপনার স্ক্রিন উজ্জ্বল আর শাইনিং দেখাবে। এর পাশাপাশি আপনার স্কিনের অন্যান্য সমস্যাগুলোকে রিকোভার করবে। পাশাপাশি আপনার শরীরে জমে থাকা বিষাক্ত টক্সিনকে বের করে দেবে। 

আসলে এই জিনিসটার উপকারের কথা বলে শেষ করা যাবেনা। তাই অবশ্যই ট্রাই করে দেখতে পারেন  আপনি নিজের চোখে দেখতে পাবেন ।

 ৩ :নাম্বার

বাহিরের ধুলাবালি থেকে দূরে থাকার চেষ্টা করতে হবে।

 ৪ :নাম্বার

প্রতিদিন অন্তত পক্ষে ৭ থেকে ৮ গ্লাস জল পান করুন এটি আপনার ত্বকের উজ্জলতা বৃদ্ধি করতে সাহায্য করবে। 

৫ :নাম্বার

 সুস্থ সুন্দর ও ফর্সা করার জন্য বিভিন্ন ধরনের খাবার খাওয়া দরকার। ত্বক ফর্সা করার উপায় গুলোর মধ্যে অনেক ধরনের খাবার আছে ত্বক সুস্থ ও উজ্জ্বল রাখার জন্য আপনাকে অবশ্যই এই ধরনের খাবার খেতে হবে। নিয়মিত খাবার গুলোর মধ্যে রয়েছে আপেল, কিসমিস, টক দই, মিষ্টি আলু ইত্যাদি। ত্বক কোমল ও মসৃণ করার জন্য মধু অনেকখানি কাজ করে। 

আরো পড়ুন :কম বয়সী দেখার জন্য প্রাকৃতিক ত্বকের যত্ন

আরও অনেক ধরনের খাবার রয়েছে। যা খেলে প্রাকৃতিক ভাবে ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়ে আর এটা যথেষ্ট পরিমাণে ভালো তাই প্রতিদিন নিয়মিত সুস্থ সুন্দর কোমল মসৃণ ফর্সা করার জন্য বিভিন্ন ধরনের ফল খাওয়ার চেষ্টা করুন।

 সবশেষে একটা কথাই বলতে চাই আমরা বিভিন্ন রকম ক্রিম বাজার থেকে কিনে ব্যবহার করে থাকি। কিন্তু বাজারে বেশিরভাগ ক্রিম থাকে চড়া রাসায়নিক পদার্থ দেখা দিতে পারে কিছু ক্ষতিকারক পার্শ প্রতিক্রিয়া। তাই প্রাকৃতিকভাবেই সবচেয়ে ত্বকে উজ্জ্বল করাই ভালো।