শারীরিক মিলনের উপকার

শারীরিক মিলনের স্বাস্থ্যগত উপকার

বিয়ের পরে বা তার আগে অনেকেরই সঙ্গীর সাথে শারীরিক মিলন করে থাকে।  শারীরিক মিলন কেবল মনের সন্তুষ্টির জন্য তা কিন্তু নয়।  বেশিরভাগ মানুষ শারীরিক মিলনের উপকারিতা সম্পর্কে জানেন না, আসুন জেনে নেয়া যাক শারীরিক মিলনের স্বাস্থ্যগত কিছু উপকারিতা।
 
১. ভাল ব্যায়াম।

স্বামী এবং স্ত্রীর মধ্যে সহবাসে, বিভিন্ন অঙ্গ সঞ্চালিত হয় তার ফলে শারীরিক মিলন এক প্রকার ব্যায়ামের কাজ করে । এছাড়াও শারীরিক মিলনের ফলে শরীর থেকে আরও অনেক ক্যালরি খরচ হয় যার কারণে কোলেস্টেরলের মাত্রা হ্রাস করে, রক্ত প্রবাহকে উন্নত করে। গবেষকরা বলেছেন  আপনি যদি এক সপ্তাহ নিয়মিত হাঁটা-চলা করেন তবে তাতে যে পরিমান ক্যালোরি খরচ হয়, সপ্তাহে তিন দিন শারীরিক  মিলনে লিপ্ত হলে আপনার সেই একই পরিমান ক্যালোরি খরচ হয়।

আরো পড়ুন – প্রেম টিকিয়ে রাখার ৭ টি কৌশল
 
২. ওজন কমানো।

শারীরিক মিলন প্রচুর পরিমাণে ক্যালোরি পোড়ায়, যার ফলে ওজন হ্রাস হয়।  নিয়মিত শারীরিক মিলনের ফলে পেটের স্থূলতা কম করে এবং পেশীর জড়তা হ্রাস করে। অনেকে ওজন কমাতে অনেক টাকা ব্যয় করেন, তাই তারা খুব উপকৃত হবেন।
 
৩. প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়।

নিয়মিত শারীরিক মিলন আমাদের immunity system ঠিক রেখে এবং আমাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা শক্তিশালী করতে সহায়তা করে। নিয়মিত শারীরিক মিলন , এটি থেরাপি হিসাবে কাজ করে, এর ফলে হজমে উন্নতি করে এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়।

৪. ব্যাথা মোচন।

গবেষণায় দেখা গেছে যে শারীরিক মিলন মাথা এবং হাড়ের জয়েণ্টের ব্যথায় স্বস্তি দেয়।  ওর্গাজমের আগে অক্সিটোসিন হর্মোনের স্তর সামান্য থেকে পাঁচ গুন বেঁড়ে যাওয়ায় এণ্ড্রোফিন হর্মোন নিঃসৃত হয় যার ফলে মাথা ব্যথা, মাইগ্রাইন এবং আর্থ্রাইটিস থেকে মুক্তি দেয়।  তাই ব্যথা কমানোর ঔষধ না খেয়ে শারীরিক মিলন উপভোগ করুন এবং ব্যথা উপশম পান।
 
৫. ভাল ঘুম।

শারীরিক মিলনের স্বাস্থ্যগত উপকার

শারীরিক মিলনের সময়, শরীর থেকে অক্সিটোসিন হরমোন নিঃসৃত হয়, যার ফলে শারীরিক মিলনের পরে আরও ভাল ঘুম হয়।  তাই যাদের ঘুমাতে কোনও অসুবিধা হয়, তারা অবশ্যই এই পদ্ধতি অবলম্বন করে উপকৃত হবেন।

আরো পড়ুন: বাসে উঠলেই বমি পায়? জানুন মুক্তির ১০টি উপায়
 
৬. কর্ম ক্ষমতা বাড়ায়

 গবেষকরা বলছেন শারীরিক মিলনের সময়, দেহ প্রচুর পরিমাণে হরমোন সুরক্ষিত করে  আরও বলেছিলেন যে নিয়মিত শারীরিক ক্রিয়াকলাপ দু’জনেরই কার্য ক্ষমতা বাড়ে।  শারীরিক মিলনের ফলস্বরূপ ব্যক্তি সারাদিন সতেজ অনুভব করে এবং পুরো দিনটির কাজে এই উত্সাহের প্রভাব দেখা যায়।  এটি ক্লান্তি এবং বিভিন্ন রোগ থেকে মুক্তি দেয়।

৭. সৌন্দর্য্য বাড়ে।

দেহে হরমোন নিঃসরণের ফলে রক্ত ​​প্রবাহের মাত্রা বাড়ে।  যা ত্বকে প্রভাব ফেলে  শারীরিক মিলনের সময় হরমোন ইস্ট্রোজেন মহিলাদের দেহ থেকে নিঃসৃত হয় যা তাদের চুল এবং ত্বককে চকচকে এবং আকর্ষণীয় করে তোলে।

বন্ধুরা আপনারা নিশ্চয় জানেন পারলে শারীরিক মিলন শুধু আমাদের আনন্দ দেয় না আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য কতটা উপকারী।

বন্ধুরা এই প্রতিবেদনটি কেমন লাগলো অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন এবং বন্ধুদের সঙ্গে শেয়ার করতে ভুলবেন না ধন্যবাদ।